in

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কি? কিভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়?

আজ আমরা জানবো কিভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়। শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকার সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো শরীরের Immunity শক্তিশালী থাকায় কোনো রোগই আমাদের দ্রুত ধরতে পারে না। এর কারণে আমাদের শরীরে রোগের প্রভাব কম পড়ে। আমাদের শরীর স্বয়ংক্রিয়ভাবে ছোটোখাটো রোগ থেকে মুক্তি পায়, কিন্তু তারপরেই আমাদের শরীর রোগ গ্রাস করতে শুরু করে।

যখন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়, এমন অবস্থায় জীবাণু ও ব্যাকটেরিয়া আমাদের শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে আক্রমণ করার সুযোগ পায়। আজকের প্রবন্ধে আমরা জানব যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে কী করতে হবে, কীভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়, ইত্যাদি সব তথ্য জানা যাবে বিস্তারিত, তাই শেষ পর্যন্ত পোস্ট পড়ুন।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কি?

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এমন একটি জিনিস যা ক্ষতিকারক ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া এবং জীবাণু থেকে আমাদের রক্ষা করতে কাজ করে এবং এর কারণে আমরা রোগ থেকে দূরে থাকি এবং দীর্ঘ সময় সুস্থ থাকি। Immunity এমন একটি জিনিস যা আমাদের শরীরকে রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করার শক্তি দেয়। সেজন্য ভালোভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করা প্রয়োজন।

কিভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়?

আমরা যদি ইমিউন সিস্টেমের কাজ সম্পর্কে কথা বলি, তাহলে এর প্রধান কাজ হল আমাদের বিভিন্ন ধরনের রোগ থেকে রক্ষা করা। তাই বিশেষজ্ঞদের মতে, এটা বলা হয়েছে যে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যখন দুর্বল হয়ে পড়ে, তখনই তা বাড়ানোর চেষ্টা করা উচিত। অন্যথায়, দেরি হলে আপনি সাধারণ এবং ক্ষতিকারক রোগের দখল নিতে পারেন। যার জন্য আপনাকে খরচ করতে হবে হাজার হাজার এমনকি লক্ষাধিক টাকা।  কিন্তু একটু যত্ন নিলেই আপনার টাকা বেঁচে যাবে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে কী করবেন?

আসুন আমরা আপনাকে বলি শুধুমাত্র একটি নয়, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হওয়ার অনেক কারণ রয়েছে। কিছু সাধারণ কারণের কথা বলছি, যদি আপনার লাইফস্টাইল ঠিক না থাকে বা আপনি সকালে দেরি করে ঘুম থেকে উঠেন বা আপনি বাইরের খাবার বেশি খান। তাহলে এর কারণে আপনার পরিপাকতন্ত্র সঠিকভাবে খাবার হজম করতে পারে না।

আরও দেখুন>>> 

যার কারণে শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ পুষ্টি পায় না এবং এতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে পড়ে। যদি আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়, তাহলে এই নিবন্ধটির মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করতে কী করতে হবে।

১. ক্বাথ পান করুনঃ- আপনি নিশ্চয়ই ক্বাথ পান করেছেন, বিশেষ করে যখন করোনভাইরাসের ভয় সবচেয়ে বেশি ছিল এবং এই ভাইরাসের কারণে অনেক লোক আক্রান্ত হয়েছিল। শরীরের ইমিউন সিস্টেম অর্থাৎ Immunity দুর্বল। সেজন্য ডাক্তার মানুষকে ক্বাথ পান করার পরামর্শ দিয়েছেন। আপনি যদি আপনার Immunity বাড়াতে চান তবে এর জন্য আপনার ক্বাথ পান করা উচিত।

যদিও আপনি অনেক কিছুর ক্বাথ তৈরি করতে পারেন, তবে এখানে আমরা আপনাকে একটি খুব ভাল ক্বাথ বলছি। এই ক্বাথ তৈরি করতে আপনাকে নিতে হবে 2 চামচ ক্যারাম বীজ, 5 দানা কালো মরিচ, 5 টি তুলসী পাতা। এর পর কিছু পানি গরম করে এর ভিতরে এই সব জিনিস রেখে সিদ্ধ করতে হবে। ফুটে উঠলে গ্যাস বন্ধ করে গ্লাসে নিয়ে হালকা গরম করে নিতে হবে, তারপর অল্প অল্প করে পান করতে হবে। সকালে এবং রাতে এটি সেবন করলে ধীরে ধীরে আপনার শরীরের Immunity খুব ভালো হয়ে যাবে।

Immunity কাকে বলে

২. মাল্টি ভিটামিন বড়িঃ- অনেক সময় অনেকেই ভাবেন যে তরা খাবার খান, কিন্তু খাবার খেয়েও তারা ক্লান্ত বোধ করেন এবং দীর্ঘ সময় ধরে কোন কাজ করতে পারেন না। আপনিও যদি এমনটি অনুভব করেন, তাহলে এটি একটি লক্ষণ যে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল এবং আপনাকে এটি বাড়াতে হবে। Immunity বাড়াতে ট্যাবলেট আকারে বাজারে অনেক ওষুধ পাওয়া যায়।

আপনার Immunity বাড়াতে আপনি যেকোনো মাল্টিভিটামিন ওষুধ খেতে পারেন। আমাদের পরামর্শ অনুযায়ী, আপনাকে বেকাডেক্সামিন নামক একটি মাল্টি ভিটামিন ট্যাবলেট খেতে হবে যার দাম মাত্র ৬০-৭০ টাকা। এটি একটি দুর্দান্ত ইমিউনিটি বুস্টার মাল্টিভিটামিন পিল। সাশ্রয়ী হওয়ায় এটি আপনার বাজেটের সাথেও খাপ খায়। এই ট্যাবলেটটি দিনে দুবার সকালে এবং সন্ধ্যায় খেলে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

৩. প্রতিদিন ব্যায়াম করুনঃ- আপনার শরীরের Immunity বাড়ানোর জন্য আপনাকে প্রতিদিন হালকা ব্যায়ামও করতে হবে। আপনার বাড়ির আশেপাশে যদি জিম না থাকে, তবে আপনি বাড়িতে ছোট ওজনের জিনিস তুলতে পারেন। এতে করে আপনার পেশী সক্রিয় হবে এবং পেশী সক্রিয় হওয়ার ফলে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়বে। কারণ আমরা যখন ব্যায়াম করি তখন আমাদের শরীরের পেশীগুলি প্রসারিত হয় যার ফলে শরীরের সমস্ত পেশী সক্রিয় হয় এবং তারাও পুষ্ট হয়।

৪. পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার খানঃ- বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই ধরনের মানুষের Immunity দুর্বল হয়ে পড়ে, যারা খাবার খান কিন্তু খাবার থেকে পুষ্টি পেতে পারেন না। আমরা বলতে চাচ্ছি যে তারা এমন খাবার খায় যা তাদের পেট ভরে এবং তাদের পুষ্টি দেয় না। আপনার শরীরের Immunity বাড়াতে আপনার উচিত সঠিক খাবার অর্থাৎ পুষ্টি জাতিয় খাবার গ্রহণ করা।

কি খেলে ইমিউনিটি বাড়ে

আপনার খাবারে প্রোটিন, কার্বোহাইড্রেট এবং ফ্যাট একই পরিমাণে রাখা উচিত কারণ এই তিনটি জিনিসই যে কোনও ব্যক্তির শরীরের সমস্ত অঙ্গকে পুষ্ট করে এবং তার শরীরকে খুব ভাল এবং শক্তিশালী করে তোলে। পুষ্টি পাওয়ার জন্য ডাল, চাল, কিডনি বিন, দুধ, দই, ঘি, মাখন, মুরগির মাংস, মাটন, মাছ, ডিম, সয়াবিনের ডাল, সয়াবিন বড়, মুগ ডাল এবং এই জাতীয় অন্যান্য জিনিস খেতে হবে যাতে পুষ্টি পাওয়া যায়। এগুলো থেকে পাওয়া রস আপনার শরীরে শোষিত হয়।

৫. ব্রকলি খানঃ- ব্রোকলি ভিটামিন এবং খনিজ সমৃদ্ধ একটি দুর্দান্ত সুপার-চার্জড সবজি, যা আপনি আপনার স্থানীয় বাজারে সহজেই পেতে পারেন। এর ভিতরে ভিটামিন এ, ভিটামিন সি এবং ভিটামিন ই যেমন ভালো পরিমাণে পাওয়া যায়। তেমনি ফাইবার এবং আরও অনেক অ্যান্টিঅক্সিডেন্টও ব্রকলিতে পাওয়া যায়। এটি একটি স্বাস্থ্যকর সবজি হিসাবে বিবেচিত হয় যা আপনি আপনার খাবারে ব্যবহার করতে পারেন। এটি খাওয়ার সর্বোত্তম উপায় হল এটি সিদ্ধ করে খাওয়া কারণ এটি বিশ্বাস করা হয় যে এটি সিদ্ধ করে আমরা এতে থাকা সমস্ত পুষ্টি পাই।

৬. এছাড়াও রসুন চেষ্টা করুনঃ- পৃথিবীর প্রায় সব জায়গায় রসুন পাওয়া যায়। এর ভিতরে প্রচুর পরিমাণে জিঙ্ক পাওয়া যায়, যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়। আয়ুর্বেদে সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্যও এর অনেক কথা বলা হয়েছে। এটি একটি Immunity বৃদ্ধিকারী জিনিস কারণ এর ভিতরে প্রচুর পরিমাণে সালফার পাওয়া যায়, যা আপনার শরীরের Immunity বাড়ায়, যার কারণে কোনো ভাইরাস আপনার শরীরের কোনো অংশকে দ্রুত আক্রমণ করতে পারে না এবং আপনি সুস্থ থাকেন।

৭. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে আদাঃ- শরীরের Immunity বাড়াতেও আদাকে ইমিউনিটি বুস্টার হিসেবে ব্যবহার করা হয়। আপনি যদি চান আপনি Immunity বাড়াতে ক্বাথ মাতাল এটি ব্যবহার করতে পারেন। কাশি এবং সর্দির মতো সমস্যায়ও আদা আমাদের উপকার করে। তাই আপনি যদি Immunity বাড়াতে চান, তাহলে অবশ্যই একবার আদা ব্যবহার করে দেখুন। আমরা নিশ্চিত যে এটি অবশ্যই আপনার জন্য কাজ করবে।

এছাড়াও ব্লুবেরি চেষ্টা করুনঃ-

ব্লুবেরির ভিতরে অ্যান্থোসায়ানিন পাওয়া যায়, যার একটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা মানুষের Immunity কে ত্বরান্বিত করে। গবেষণায় এটি বেরিয়ে এসেছে যে অ্যান্থোসায়ানিন Immunity উন্নত করতে একটি ভালো জিনিস। যে কেউ ব্লুবেরি খান তাদের তাড়াতাড়ি সর্দি-কাশির মতো সমস্যা হয় না। আপনি চাইলে ক্বাথের মধ্যে মিশিয়ে পান করতে পারেন। এটা করলে আপনার শরীরে দারুণ প্রভাব পড়বে।

আরও দেখুন>>> 

৯. হলুদ দুধঃ- আগের সময় থেকে আজ অবধি অনেকেই আছেন যারা ব্যথা পেলে হলুদের দুধ পান করেন। হলুদের ভিতরে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য পাওয়া যায়, তাই এটি খেলে আমাদের শরীরের ক্ষত দ্রুত সেরে যায়। এ ছাড়া দুর্বলতাও চলে যায়। সকালে ও সন্ধ্যায় হলুদের দুধ পান করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন যে হলুদে আপনাকে বাজারের নয় বরং মাটির হলুদ যোগ করা হয়েছে কারণ এটি খাঁটি।

উপসংহার
আশা করি আপনি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পর্কে সম্পূর্ণ তথ্য পেয়েছেন। যদি এখনও আপনার মনে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পর্কে কোন প্রশ্ন থাকে এবং কিভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়? এই বিষয়ে আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট বিভাগে কমেন্ট করে নির্দ্বিধায় জিজ্ঞাসা করতে পারেন। যদি এই তথ্যটি আপনার ভালো লেগে থাকে, তাহলে অবশ্যই শেয়ার করুন যাতে সবাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পর্কে তথ্য পেতে পারে।

ডার্ক সার্কেল কি? জেনে নিন চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার উপায়

হিমোগ্লোবিন টেস্ট কি? কিভাবে এবং কেন হিমোগ্লোবিন পরীক্ষা করা হয়?