in

জিম ছাড়া মাত্র ১৫ দিনে কিভাবে শরীর বাড়ানো যায় দেখে নিন

রেগুলার জিম করে শরীর এবং ফিটনেস আকর্ষণীয় করে তোলা জায় সেটা আমরা সকলে জানি। কিন্তু, জিম ছাড়া মাত্র ১৫ দিনে কিভাবে শরীর বাড়ানো যায় সেই বিষয়ে খুব কম মানুষ-ই জানে। বন্ধুরা , জিম ছাড়া কিভাবে শরির বাড়ানো যায় সেই বিষয়ে আমরা আজকে সম্পূর্ণ তথ্য জানব। তাহলে চলুন শুরুন করা যাক……

শরীর গঠনের জন্য প্রথমে বদ অভ্যাস ত্যাগ করুন-

১) ধূমপান ত্যাগ করুন:- আপনি যদি শরীর তৈরি করতে সিরিয়াস হন, তবে আপনাকে প্রথমে কিছু খারাপ অভ্যাস যেমন খৈনি, গুটখা, সিগারেট, পান ত্যাগ করতে হবে, আপনি যদি ছাড়তে না পারেন তবে একটু কম ব্যবহার করুন।

২) হস্তমৈথুন ত্যাগ করুন:- আর একটি খুব খারাপ অভ্যাস যা প্রায় প্রতিটি ছেলের মধ্যে ঘটে তা হল হস্তমৈথুন, যে এটি নিয়ন্ত্রণ করেছে, শরীর তৈরি করতে কোনও সমস্যা নেই এবং প্রায়শই চ সেই ছেলের হয় না যার হস্তমৈথুন করার অভ্যাস আছে। খুবই বাজে অভ্যাস, যেদিন আপনি এই জিনিসটা ছেড়ে দেবেন, বুঝবেন আপনার শরীর গঠন শুরু হবে, এই জিনিসটা শরীরের অনেক ক্ষতি করে।

শরীর

হস্তমৈথুনে যে সাদা পদার্থ বের হয় তা হল আমাদের শরীর থেকে চেপে যাওয়া অনেক ভিটামিন দিয়ে তৈরি হয়, যা আমরা শুধু নষ্ট করে ফেলি। যার কারণে আমাদের শরীরে ভিটামিনের অভাব দেখা দেয়, যদি কখনো ১ মাস রেখে দেন, তার পরেই পার্থক্যটা নিজেই বুঝতে পারবেন, যদি আপনি ভালো থাকতে চান। শরীর তাহলে আপনাকে এই অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে এবং কমপক্ষে .১৫ দিন ধরে রাখতে হবে।

৩) পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন:-

আপনার শরীরে পানির অভাব যেন না হয়, যদিও শরীরের ওজন অনুযায়ী পানি পান করা হয়, কিন্তু সারাক্ষণ তা পরিমাপ করার মতো সময় কারো নেই, তবে প্রচুর পরিমাণে পান করুন। পানি, এতে কোনো সমস্যা হবে না।বরং যত বেশি পান করবেন ততই উপকার হবে।

৪) আপনার খাদ্যাভ্যাস বাড়াতে হবে:- আপনাকে আপনার খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করতে হবে, দিনে ৩-৪ বার খেতে হবে, অল্প অল্প করে খান কিন্তু আপনার খাদ্যতালিকা বাড়ান, যাতে আপনার ক্ষুধা লাগতে শুরু করে, শরীর গঠনে যে দাবিই আসে না কেন।

৫) প্রয়োজনীয় পরিমাণ ক্যালরি নিন:- শরীর গঠনের জন্য আপনাকে প্রয়োজনীয় পরিমাণ ক্যালরি নিতে হবে এবং সঠিক উপায়ে খাবার খেলে ক্যালরি আসবে, তাই যে খাবারে বেশি ক্যালরি আছে সেই খাবার ব্যবহার করুন, আমি আপনাকে একটি ধারনা দিচ্ছি। এখান থেকে আপনি জানতে পারবেন। আপনার প্রতিদিন কত ক্যালরি দরকার?

আরো ক্যালোরি পেতে, আপনি এই ধরনের গ্রাস করা উচিত যেমন-

  • সকাল এবং সন্ধ্যা – ১-২ গ্লাস দুধ।
  • সকাল এবং সন্ধ্যা – ১-২ টুকরা কলা।
  • সকাল এবং সন্ধ্যা – ১-২ টি ডিম।
  • মাখন।
  • আমিষ ব্যবহার করুন।
  • সয়াবিন ব্যবহার করুন।
  • সবুজ শাকসবজি খান।
  • সালাদ বেশি ব্যবহার করুন।

6) খাবার ও পানীয়ের প্রতি মনোযোগ দিন:- সময়মতো খাবার খান, বাইরের খাবার এড়িয়ে চলুন এবং মানসম্পন্ন খাবার খান এবং খাবার চিবানোর সাথে সাথে চা-কফি খাবেন না।

৭)সময় মত ঘুমান :- শরীর গঠনের জন্য ঘুম খুবই গুরুত্বপূর্ণ, তাই বিশ্রাম নিন এবং সময়মতো ঘুমান। ঘুমানোর সময় ঘুমাতে না পারলে ঘুমানোর আগে পানি পান করুন। রাতে ঘুমানোর আগে পানি পান করা আপনার মানসিক চাপ কমায় এবং আপনাকে ভালো ঘুমাতে সাহায্য করে। কমপক্ষে ৭ বা ৮ ঘন্টা ঘুমান।

৮) এই জিনিসগুলি এড়িয়ে চলুন:- দ্রুত শরীর তৈরি করতে জাঙ্ক ফুড এবং মিষ্টি খাওয়া এড়িয়ে চলতে হবে। এর পাশাপাশি হাততালি ( হস্তমৈথুন ) দেওয়া জিনিস থেকেও দূরত্ব বজায় রাখুন।

৯) চর্বিযুক্ত উপাদান ব্যবহার করুন:- চর্বি জাতীয় পদার্থ আপনার শরীরকে বড় করতে কাজ করে। সঠিক পরিমাণে গ্রহণ করলে এর প্রভাব দীর্ঘকাল স্থায়ী হয়। যেমন মাখন, চিপস, ঘি ইত্যাদি নিতে পারেন। জলপাই, ক্যানোলা, তিলের তেল, স্যামন মাছ এবং লবণাক্ত খাবারে চর্বি পাওয়া যায়। চর্বিযুক্ত পদার্থ হৃৎপিণ্ড, রক্ত, শিশুদের জন্য, দৃষ্টিশক্তি এবং মস্তিষ্কের বিকাশের জন্য প্রয়োজনীয়।

১০) ভিটামিন এবং ক্যালসিয়াম:- একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ ভিটামিন এবং ক্যালসিয়াম ব্যবহার করুন, এটি আপনার খাবার এবং পানীয় থেকে আসবে, এটি আপনার বয়স, লিঙ্গ, ওজন, কতটা ভিটামিন এবং ক্যালসিয়াম প্রয়োজন তার উপর নির্ভর করে, তারপর আপনি চাইলে আপনিও ব্যবহার করতে পারেন। এর জন্য দাবী করতে পারে, যেমন বাইকোসুল, রি-বাটাল, ইত্যাদি।

শরীর তৈরি করতে কিভাবে খাবার খেতে হয়

শরীর

  1. দই- সকালের নাস্তায় আলু ভর্তার সাথে দই খান, এটি শরীরের শক্তি বাড়াতে উপকারী।
  2. দুধ ও ঘিঃ- এক গ্লাস মিষ্টি, ঈষদুষ্ণ দুধে এক চামচ খাঁটি ঘি ঘুমানোর সময় পান করতে হবে।
  3. চিনাবাদাম:- ৪০ গ্রাম চিনাবাদাম ভাজুন, ১০ গ্রাম গুড় দিয়ে চিবিয়ে নাস্তা হিসাবে খান, এটি শক্তির একটি ভাল উৎস।
  4. পালং শাক:- পেশী তৈরির জন্য পালং শাক খুবই উপকারী বলে মনে করা হয়। প্রতিদিন প্রায় আধা কেজি পালং শাক খেলে অনেক উপকার পাবেন।
  5. তাজা ফল:- তাজা ফল শরীরে শক্তি জোগাতে গুরুত্বপূর্ণ। পেশী গঠনের জন্য কলা, কমলা, আপেল খুবই গুরুত্বপূর্ণ ফল। এতে উপস্থিত ভিটামিন বি মাংসপেশিকে শক্তিশালী করে।
  6. আনারস:- আনারসে উপস্থিত ব্রোমেলেন নামক উপাদান প্রোটিন হজম করতে সাহায্য করে। এর সাথে এটি পেশীতে জ্বালাপোড়াও কমায়। এটি খেতেও সুস্বাদু, তাই একবার খাওয়া শুরু করলেই খেতে থাকবেন।
  7. পনির:- পেশী তৈরি করতে এবং শরীরকে ফিট রাখতে পনিরকে খুবই উপকারী বলে মনে করা হয়। এটি খাওয়ার পর অনেকক্ষণ ক্ষুধাও লাগবে না।

কিভাবে দ্রুত শরীর বাড়ানো যায়

আপনিও যদি চান যে আপনার শরীরও তৈরি হোক, তাহলে শরীর গঠনের জন্য প্রতিটি রুটিনের সময় নির্ধারণ করা জরুরি। শরীর একদিনে তৈরি হয় না, এর জন্য আপনাকে একটু অপেক্ষা করতে হতে পারে বা পড়তে হতে পারে। আপনি যত বেশি সময় ব্যয় করবেন, তত ভাল আকৃতি এবং ভাল শরীর পাবেন। এর জন্য আপনাকে প্রতিদিন ব্যায়াম করতে হবে।

১১) ব্যায়াম করুন: পুরো শরীর ব্যায়াম সর্বোচ্চ সুবিধা দেয়। ব্যায়ামের সময় আপনি যত বেশি পেশী ব্যবহার করবেন, শরীর তত বেশি হরমোন (এপিনেফ্রাইন এবং নোরপাইনফ্রিন সহ) তৈরি করবে, যা ব্যায়ামের সময় এবং সারা দিন পেশী বৃদ্ধিকে উদ্দীপিত করে। শরীরের সমস্ত ধরণের পেশীতে সমান মনোযোগ দিন, যেমন পাঁচ সেট বেঞ্চ প্রেসের পরে সারিগুলির পাঁচ সেট। এই সুষম ব্যায়াম বৃদ্ধি, এবং নমনীয়তা উদ্দীপিত করবে।

কঠোর ব্যায়াম করুন, তবে অল্প সময়ের জন্য। আপনার সামগ্রিক ব্যায়াম দিনে ৪৫ মিনিটের মধ্যে সীমাবদ্ধ করুন। আপনি প্রতিটি সেশনে সম্পূর্ণ শরীরের ব্যায়াম করতে পারেন, বা আপনার সেশনগুলিকে করতে পারেন, উদাহরণস্বরূপ, এক দিনে উপরের শরীরের ওয়ার্কআউটগুলির মধ্যে, এবং অন্য দিকে নিম্ন শরীরের ব্যায়াম। যৌগিক ব্যায়াম যেমন স্কোয়াট, ডেড লিফট, প্রেস, সারি এবং পুল-আপে বিভিন্ন পেশী ব্যবহার করা হয়।

বন্ধুরা, আশা করি জিম ছাড়া মাত্র ১৫ দিনে কিভাবে শরীর বাড়ানো যায় তা আপনারা বুঝতে পেরেছেন। যদি আমাদের এই পোস্টটি আপনাদের ভাল লেগে থাকে তাহলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। জাতে করে তারাও জিম ছাড়া কিভাবে অল্প সময়ে শরীর বাড়ানো যায় তা সঠিক ভাবে বুঝতে পারে। পরবর্তীতে কোন বিষয়ে পোষ্ট দেখতে চান আমাদেরকে কমেন্ট করে জানান। আপনাদের কমেন্ট আমাদেরকে নিত্ত নতুন পোষ্ট লিখতে উৎসাহিত করে।

ঘরে বসে সাদা চুল কালো করার উপায়

স্পার্ম কাউন্ট কেন কম হয়? এর কারন গুলো জেনে নিন